1. admin@dailyswadhinbangladesh.com : admin :
  2. n.ganj.jasim@gmail.com : স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট : স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট
  3. reduanulhoque11@gmail.com : reduanulhoque :
  4. sohag42000@gmail.com : sohag42000 :
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
‘দেশে অর্ধেকের বেশি নারীর বাল্যবিয়ে হয়’ বেইলি রোডে আগুনের ঘটনায় এখনো ৬ জন চিকিৎসাধীন গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষায় পুলিশকে দায়িত্ব পালন করতে হবে: প্রধান বিচারপতি দক্ষিণ কোরিয়ায় ৭ হাজার ডাক্তারের লাইসেন্স স্থগিত ইসরায়েলি গুপ্তচরের’ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করল ইরান গাজায় অপুষ্টি-পানিশূন্যতায় আরো ১৫ শিশুর মৃত্যু কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার ও চা চুমুকের মালিকসহ ৪ জন কারাগারে চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকারি অনুদানে আরও স্বচ্ছতা ও পেশাদারিত্ব নিশ্চিত করা হবে : আরাফাত সীমান্ত রক্ষায় বিজিবিকে স্মার্ট প্রযুক্তিতে সজ্জিত করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী না:গঞ্জে ক্ষমতার স্বাদ পায়নি আওয়ামীলীগের ত্যাগীরা

নারায়ণগঞ্জের গৃহবন্দী ডলির মামলার এখনো হয়নি সুরাহা

মনিকা আক্তার
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২৩

“নারী ও কন্যা সহিংসতা বন্ধে এগিয়ে আসুন,সহিংসতা প্রতিরোধে বিনিয়োগ করুন”এই স্লোগানে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস-২০২৩ উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখা সংবাদ সম্মেলন করেছে।

মঙ্গলবার ৫ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় শহরের আমলাপাড়ায় অবস্থিত মহিলা পরিষদের নিজ কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি লক্ষ্মী চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাধারণ সম্পাদক এড.হাসিনা পারভীন এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ শাখার সাবেক সভাপতি আঞ্জুমান আরা আকসির।

২০২৩ সালের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশ মহিলা পরিষদে সংরক্ষিত ১৩টি পত্রিকার তথ্যের ভিত্তিতে বিগত ১০ মাসে বাংলাদেশে ধর্ষণ হয়েছে ৩৯৭ জন, দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ১১৫ জন , ধর্ষণের পর হত্যা ৩১ জন, ধর্ষণের কারণে আত্মহত্যা ১২ জন, ধর্ষণের চেষ্টা ৮৯ জনকে, যৌন নিপীড়ন ১৪২ জন, নারী ও কন্যা পাচার হয়েছে ১২ জন, এসিডদগ্ধ হয়েছে ৬ জন, অগ্নিদগ্ধ হয়েছে ৯ জন, এসিডদগ্ধের কারনে মৃত্যু ১৪ জন, যৌতুকের কারনে নির্যাতন হয়েছে ৬১ জন ও হত্যা হয়েছে ৪৫ জন শারীরিক নির্যাতন ২১১ জন, গৃহকর্মী নির্যাতন ১২ জন ও হত্যা ৮ জন সহ নারী ও কন্যা শিশুদের বিভিন্ন নির্যাতনে মোট ২৫৭৫ জনের রিপোর্ট উপস্থাপন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা নারী নির্যাতন, যৌতুক, বাল্যবিবাহ, ধর্ষণ ও কন্যাশিশু নির্যাতন প্রতিরোধে নানা সুপারিশ তুলে ধরেন এবং তা প্রতিকারের বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ করেন। এসময় দিবসটির তাৎপর্য উল্লেখ করে বক্তারা বলেন,নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য এবং কন্যা ও শিশু নির্যাতন বিরোধী সংস্কৃতি গড়ে তোলার উদ্দেশ্য সারা বিশ্বে প্রতি বছর ২৫শে নভেম্বর থেকে ১০ই ডিসেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস পালিত হচ্ছে।বাংলাদেশ মহিলা পরিষদও দেশব্যাপী নানা ধরনের কর্মসূচী পালন করেছে।সাংবাদিকদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলন,বিভিন্ন শ্রেনী পেশার নারী-পুরুষের সাথে মতবিনিময় সভা, গনপরিসরে ও গনপরিবহনে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় করনীয় বিষয়ে প্রশাসন, পরিবহন মালিক ও শ্রমিক,জনপ্রতিনিধি এবং আইনজীবিদের সাথে মতবিনিময় সভা, নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা বন্ধের আহবান জানিয়ে স্কুল,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক,শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময় সভা, যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের ঘটনা প্রতিরোধে বিভিন্ন পাড়া,মহল্লায় তৃণমূলের নারী-পুরুষ, তরুন-তরুনীদের সাথে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক সভা, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পোষ্টারিং ইত্যাদি কর্মসূচী পালন করছে।

বক্তারা সাংবাদিকদের সহযোগিতা চেয়ে আরো বলেন, নারীদের নিপীড়ন,নির্যাতন প্রতিরোধ ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে মহিলা পরিষদ কাজ করলেও নির্যাতন বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। সাংবাদিকরা হচ্ছে সমাজের দর্পণ,জাতির বিবেক তাই সাংবাদিক সমাজের সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি আমরা। প্রশাসনের অসহযোগিতায় অনেক সময় আমাদের নারীদের বিভিন্ন নির্যাতন, নিপীড়নের বিচার পাইয়ে দেওয়া ও প্রাপ্য অধিকার আদায়ের মামলা সঠিকভাবে চলে না। নারায়ণগঞ্জের গৃহবন্দী ডলির মামলার এখনো সুরাহা হয়নি। আপনেরা জানেন মাসদাইরে ২০১২ সালে ডলির স্বামী শরীফ চৌধুরীর মৃত্যুর পর তার একমাত্র প্রতিবন্ধী পুত্র সন্তান রাফিকে তারই দেবর তমাল,তাপস ও ননদ রিটা শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন সহ গৃহবন্দি করে রাখে।২০১২ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৬ বছর হয়েছে গৃহবন্দি সহ নানা শারীরিক, মানসিকভাবে নির্যাতিত সেই সাথে তার স্বামীর অর্থ সম্পদ থেকে বঞ্চিত এই ডলি। যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি ডলির পরিবারের সঙ্গে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জের সহযোগিতায় ২০১৮ সালে ডলিকে তার প্রতিবন্ধী পুত্র সন্তান সহ উদ্বার করা হয় এবং করা হয় নারী শিশু নির্যাতন মামলা। প্রশাসনের অবহেলা ও অসহযোগিতায় ২০২২ সালের শেষ দিকে এসে মামলাটি হয় খারিজ। নির্যাতিত গৃহবন্দি ডলির বিরুদ্ধে করা হয় দেবর ও নদদের দ্বারা মিথ্যা মামলা। সেই মামলায় আসামী হয়ে গত ৬ মাস যাবৎ ডলি তার স্বামীর বাড়ি ছাড়া প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে। থাকছে ভাই মোঃঅহিদুল ইসলামের বাসায়। এই ডলির অধিকার ফিরিয়ে দিতে এখনো নারায়ণগঞ্জ মহিলা পরিষদ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে এবং কাজ করছে। আমরা চাই প্রতিটি নারীদের নিরাপত্তা সহ অধিকার ফিরিয়ে দিতে।তার ব্যতিক্রম ডলিও না।আমরা চাই ডলি তার প্রতিবন্ধী সন্তানকে নিয়ে মৃত্যু স্বামীর সম্পত্তি থেকে ওয়ারিশ সূত্রে প্রাপ্ত অধিকার ফিরে পাওক। আমাদের এই সব কাজ সংবাদ মাধ্যম বন্ধু হিসেবে সব সময় সহযোগিতা করে আসছে। আপনাদের সহযোগিতা পেলে আমরা আমাদের নিশ্চিত লক্ষ নারী ও কন্যা নির্যাতন, নিপীড়ন, ধর্ষণ বন্ধে পৌঁছাতে পারবো।

নারায়ণগঞ্জ মহিলা পরিষদের লিগ্যাল এইড সম্পাদক শাহানারা বেগমের সঞ্চালনায়
উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির প্রশিক্ষণ, গবেষণা ও পাঠাগার সম্পাদক রীনা আহমেদ, সহ সভাপতি কৃষ্ণা ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রীতি কনা দাস, আন্দোলন সম্পাদক শুভা সাহা, সদস্য রাশিদা বেগম , প্রোগ্রাম এক্সিকিউটিভ সুজাতা আফরোজ,সুমি সরকার সহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্য এবং মাসদাইরের গৃহবন্দি ডলি,তার প্রতিবন্ধী সন্তান সহ বিভিন্ন প্রিন্ট,ইলেকট্রিক মিডিয়া ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ প্রমূখ।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দৈনিক স্বাধীন বাংলাদেশ

প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park